• আজ ৪ঠা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

অ্যাপে দেখা যাবে বিটিভি

বিশ্বের যে কোনো জায়গা থেকে এখন অ্যাপের মাধ্যমে বাংলাদেশ টেলিভিশনের (বিটিভি) অনুষ্ঠান দেখা যাবে।

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বুধবার সচিবালয়ে এক অনুষ্ঠানে সরকারি সম্প্রচার মাধ্যম বিটিভির অ্যাপের উদ্বোধন করেন।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বাংলাদেশ টেলিভিশন (Bangladesh television) নামের অ্যাপটি অ্যাপলের আইওএস ও গুগলের অ্যান্ড্রয়েড ফোনে ডাউনলোড করা যাবে।

মন্ত্রী বলেন, “পৃথিবীর যে কোনো প্রান্তে বসে এখন বিটিভি দেখা যাবে। মানুষের এখন ব্যস্ততা বেড়ে গেছে। এখন সময় করে আর প্রতিদিন টিভির সামনে সবাই বসতে পারেন না। সবার হাতেই এখন মোবাইল ফোন। যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে বিটিভি অ্যাপ চালু করেছে, এটি প্রশাংসার দাবি রাখে।”

বর্তমানে ৩৪টি চ্যানেল সম্প্রচারে রয়েছে আরো ১০ থেকে ১১টি চ্যানেল সম্প্রচারে আসার প্রক্রিয়ায় আছে জানিয়ে তিনি আরো বলেন, “আশা করি চ্যানেলগুলো যেন নতুন প্রজন্মের জন্য অনুষ্ঠানমালা তৈরি করে সুন্দর বার্তা তাদের কাছে পৌঁছে দেবে। দেশের মানুষের মনন তৈরি করতে এসব চ্যানেল বিরাট ভূমিকা রাখে।”

ঢাকা ও চট্টগ্রাম কেন্দ্র এবং ১৪টি উপকেন্দ্রের মাধ্যমে বর্তমানে বিটিভির সম্প্রচার কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে জানিয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, “আরও ছয়টি বিভাগীয় শহরে আগামী দুই বছরের মধ্যে বিটিভির আরো কয়েকটি কেন্দ্র স্থাপন করা হবে।”

করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি রোধে কঠোর বিধিনিষেধের সময় আরো বাড়ছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, “সে বিষয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় জানাবে। সবাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললে দিনের পর দিন লকডাউন দিয়ে রাখার প্রয়োজন নেই।

রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বাংলাদেশ টেলিভিশন (বিটিভি) কার্যক্রম শুরু করে ১৯৬৪ সালে।

অনুষ্ঠানে বিটিভির মহাপরিচালক সোহরাব হোসেন বলেন, বিটিভিকে আরো বেশি মানুষের কাছে নিতে এই অ্যাপ তৈরি করা হয়েছে।

এসএস/জেটএম

,

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন সময়ের সংবাদে । আজই পাঠিয়ে দিন Smersngbd.com@gmail.com মেইলে - Smersngbd.com@gmail.com